মাননীয় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর বাণী
মাননীয় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর বাণী

“সকল প্রশংসা মহান সৃষ্টিকর্তার”
আমার নির্বাচনি এলাকার টঙ্গীর সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি এন্ড কলেজ গাজীপুর জেলার শ্রেষ্ঠ এবং বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে অন্যতম।

আমি এ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে গত ২০০৯ সনের ১ অক্টোবর থেকে ২০১৬ সালের ২৫ জুন পর্যন্ত টানা প্রায় ৮বছর সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি এন্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছি। এ সময়ের মধ্যে আমি শত ব্যস্ততার মাঝেও প্রতিষ্ঠানটির সার্বিক উন্নয়নের জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। যার ফলে আজ প্রতিষ্ঠানটির অবকাঠামো, শিক্ষা ও সার্বিক ব্যবস্থাপনার গুণগত ও পরিমানগত প্রভূত উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। অবশ্য, এ উন্নয়নে গভর্নিং বডি, প্রতিষ্ঠান প্রশাসন, শিক্ষক-কর্মচারী, ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকবৃন্দও আমার সাথে শরিক ছিলেন। ২০০৯ সনে আমি যখন সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করি, তখণ প্রতিষ্ঠানের পরিধি এত বিস্তৃত ছিল না। আর্থিক অবস্থা, শিক্ষক-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যাও এত বেশি ছিল না। আমার দায়িত্ব গ্রহণের সময় প্রতিষ্ঠানের বর্তমান সময়ের তুলনায় পর্যাপ্ত পরিমাণ ফান্ড ছিল না। আমি যখন প্রতিষ্ঠানের সভাপতির দায়িত্ব ছেড়ে আসি, তখন ১০ তলা ভিতবিশিষ্ট ৬তলা ভবন নির্মাণে  কোটি টাকা ব্যয়সহ প্রায় ৬লক্ষ টাকা ব্যয়ে একটি আধুনিক শহিদ মিনার তৈরি করার পরও রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন দিবস আড়ম্বরপূর্ণভাবে পালন করে, জাঁকজমকপূর্ণ বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, নবীনবরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বিজ্ঞানমেলা, বিতর্কপ্রতিযোগিতা ও সৃজনশীল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের বিজয়ী ছাত্র-ছাত্রীদের ও শিক্ষক-কর্মচারীদের উচ্চ মানসম্মত পুরস্কার প্রদান করে এবং ছাত্র-ছাত্রীদের নির্ধারিত মাসিক বেতন ৫০টাকা কমানোর পরও প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক ফান্ডে ৬,৪১,২৯,০১৬ টাকা এবং ৫ কোটি টাকা এফ.ডি.আর. সহ মোট ১১,৪১,২৯,০১৬ টাকা রেখে এসেছি। শিক্ষক-কর্মচারীদের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে কয়েক দফা তাঁদের উচ্চতর বেতন স্কেল প্রদান করেছি। মূল বেতনের ৩০% বাড়িভাড়া প্রদান করেছি। পহেলা বৈশাখসহ দুই ঈদের উৎসবভাতা বেতন স্কেলের সমপরিমাণ প্রদানের ব্যবস্থা করেছি। তাঁদের প্রভিডেন্ড ফান্ড ও শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ ফান্ড গঠন করেছি। গত জুলাই, ২০১৬ থেকে এমপিও এবং ননএমপিও শিক্ষকদের বিশেষ ভাতাসহ বেতন-ভাতা ৩০০% পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছি। আধুনিক পদ্ধতিতে ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদান করার জন্য মাল্টিমিডিয়া ক্লাসের ব্যবস্থা করেছি। সকল পরীক্ষার ফলাফল ওয়েব সাইট- এ প্রকাশসহ প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় কার্যক্রমের তথ্য অনলাইনে প্রকাশের ব্যবস্থা করেছি।

প্রতিষ্ঠানটি ডিজিটাল সিকিউরিটির আওতায় আনার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানের সকল ভবন ও প্রতিটি শ্রেণিকক্ষ সিসিটিভির আওতাভুক্ত করা হয়েছে। শ্রেণিকক্ষে শিক্ষকদের পাঠদান নির্বিঘœ করতে সাউন্ড সিস্টেমের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইতোমধ্যে শিক্ষকদের প্রতিদিনের উপস্থিতি বায়োমেট্রিক পদ্ধতির আওতায় আনা হয়েছে। শিক্ষকদের পাঠদান কার্যক্রমকে আরো দক্ষ ও উন্নত করার জন্য উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণের সুযোগ দেওয়া হয়েছে, যা বর্তমানেও অব্যাহত রয়েছে।

এ প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে শিক্ষক সংখ্যা ১৫৩জন, কর্মচারী সংখ্যা ৪২জন, ছাত্র-ছাত্রী সংখ্যা প্রায় আট হাজার। প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব তহবিল থেকে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ৯.৫০ কাঠা জায়গার ওপর প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ তলা ভিতবিশিষ্ট ৬তলা ভবন নির্মাণ করেছি। অল্প কিছুদিনের মধ্যেই ভবনটির ৬ তলার সাথে অবশিষ্ট ৪তলার নির্মাণ কাজও শুরু হবে। এ ভবনের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার সাথে সাথেই ২ টি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন অত্যাধুনিক লিফট সংযোজন করা হবে, ইন্শাআল্লাহ।

ছাত্র-ছাত্রীদের ওয়াশরুম সমস্যার সমাধান করার জন্য পুরাতন ভবনে ৬টি করে ৪তলা পর্যন্ত ২৪টি উন্নতমানের ওয়াশরুম নির্মাণ করেছি। আমি আমার অনুদানে প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব জায়গায় একটি অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত ৪ তলা আইসিটি ভবন নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করেছি। আমার বিশ্বাস, ভবনটি উদ্বোধন হলে ছাত্র-ছাত্রীদের ডিজিটালাইজড শিক্ষা কার্যক্রমের ক্ষেত্রে এক নবদিগন্তের সূচনা হবে। এ প্রতিষ্ঠানে এতদিন কোনো আকর্ষণীয় মূল প্রবেশ গেইট ছিল না। আমার পরামশ্যে বর্তমানে প্রতিষ্ঠানের নামফলকসহ একটি বৃহদাকার সু-উচ্চ, আধুনিক ডিজাইনসমৃদ্ধ গেইট নির্মিত হয়েছে। শিক্ষার্থীরা যাতে কোনোভাবে পাঠ গ্রহণে অসুবিধার সম্মুখিন না হয়, সেকথা ভেবে প্রতিষ্ঠানে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সুবিধার জন্য আমি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ২টি জেনারেটরের ব্যবস্থা করে দিয়েছি।

সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি এন্ড কলেজের মূলভবনের পেছনের (পশ্চিম পার্শ্বস্থ) সংযোগ সড়কটির সংস্কার ও বর্ধিতকরণের কাজ ইতোমধ্যে শুরু করেছি যা সফিউদ্দিন একাডেমি এন্ড কলেজ রোডকে সংযুক্ত করেছে। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের অতি আকাক্সিক্ষত বিআরটি -এর প্রজেক্টের আওতাধীন সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি এন্ড কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ ও এলাকাবাসীর নির্বিঘেœ চলাচলের জন্য ১কিলোমিটার পর্যন্ত সফিউদ্দিন একাডেমি রোডের সংস্কার ও বর্ধিতকরণের কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। আমি প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণের পর গাজীপুরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়াসামগ্রী কেনার জন্য ৫০,০০০ টাকা করে অনুদান দিয়েছি, যা এখনো অব্যাহত আছে। সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি এন্ড কলেজ মাঠ উন্নয়নের লক্ষ্যে এ পর্যন্ত ১২লক্ষ টাকার বালি ফেলে উঁচু করে কংক্রিটের একটি ক্রিকেট বোলিং পিচ নির্মাণ করে দিয়েছি, যাতে আমার টঙ্গী অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা ক্রিকেট প্র্যাকটিস চালিয়ে যেতে পারে।

প্রতিষ্ঠানের শিক্ষাকার্যক্রমকে আরও গতিশীল ও মানসম্পন্ন করার জন্য আরও কিছু কর্মপরিকল্পনা গ্রহন করা হয়েছে যার সুফল ইতোমধ্যেই ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকবৃন্দ পেতে শুরু করেছেন। আমি ২০০৯ সালে গভর্নিং বডির সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণের পর বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষায় এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন রেজাল্টে জিপিএ-৫ ও শিক্ষাবৃত্তি কয়েক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছিল। যা এখনো অব্যাহত আছে।

এ প্রতিষ্ঠান থেকে পাস করা শিক্ষার্থীরা প্রতিবছর দেশসেরা উচ্চতর শিক্ষপ্রতিষ্ঠানের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ পাচ্ছে। আমার দায়িত্ব পালনকালে এ প্রতিষ্ঠানটির সার্বিক উন্নয়নের জন্য আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে আমি কাজ করেছি। কতটা সফল হয়েছি তার বিচারের ভার আমার এলাকার সর্বস্তরের জনগণের ওপরই ন্যস্ত রইলো। উন্নয়নের মূলমন্ত্রই হচ্ছে শিক্ষা। সেই শিক্ষাকে যে দেশ বা জাতি যতটা যুগোপযোগী বা প্রয়োজন উপযোগী করতে পেরেছে, সেদেশ বা জাতি ততটাই উন্নতি করতে পেরেছে। এলাকার উন্নয়নের জন্যও একই কথা প্রযোজ্য। উন্নত শিক্ষার জন্য প্রয়োজন উন্নত অবকাঠামো ও উন্নত শিক্ষাবান্ধব পরিবেশ। আমি সভাপতির দায়িত্বে থাকার পুরো সময়টাই এ দুটো বিষয়ের উন্নয়নের জন্য অধিক গুরুত্ব দিয়েছি।

আমি বর্তমানে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডির সভাপতির দায়িত্বে না থাকা সত্তে¡ও এলাকার একটি অনন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে এর মান-সুনাম, সুখ্যাতি ও ঐতিহ্যকে রক্ষাকল্পে প্রতিমন্ত্রী হিসেবে আমার সার্বিক সাহায্য-সহযোগিতা অব্যাহত রাখব ইন্শাআল্লাহ। আমি প্রতিষ্ঠানটিকে ভালোবাসি, আমি এ প্রতিষ্ঠানে উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি ও সাফল্য কামনা করি। 
আল্লাহ হাফেজ।

মো. জাহিদ আহসান রাসেল, এমপি,
প্রতিমন্ত্রী, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়,
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।

নোটিশ বোর্ড

সবগুলো পড়ুন ...

ফেসবুকে আমরা
প্রয়োজনীয় লিংকস

ভিজিটর সংখ্যা
100
as on 28 Oct, 2021 10:49 PM
© এডুটেক স্কুল সফটওয়্যার, টেক বিপিও প্রো™